নানা নাটকীয়তার পর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি হচ্ছেন সৌরভ

Posted by

প্রথম বাঙ্গালী হিসেবে অবশেষে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি হতে যাচ্ছেন সৌরভ গাঙ্গুলি। চরম নাটকীয়তার মাঝে রোববার রাতে বোর্ডের সভাপতি হিসেবে চূড়ান্ত হয়েছে তার নাম। সভাপতি হবার দৌড়ে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন এন শ্রীনিবাসন সমর্থিত ব্রিজেশ প্যাটেল।

এরফলে, ২৩ অক্টোবর বোর্ডের আনুষ্ঠানিক সভায়, সভাপতি হিসেবে সৌরভ গাঙ্গুলীর নাম ঘোষণা করতে আর কোন বাধা রইলো না। আগামি ১০ মাসের জন্য বিসিসিআইয়ের দায়িত্বে থাকবেন সৌরভ।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নির্বাচন নিয়ে দফায় দফায় সভা ও টান টান উত্তেজনায় খোদ প্রতিদ্বন্দ্বীরাও বুঝে উঠতে পারছিলেন না নিজেদের অবস্থান কোথায়।

নাটকের শুরু শনিবার রাত থেকে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ’র সাথে নয়াদিল্লীতে সভা করে আসার পর অনেকটাই চূড়ান্ত হয়ে যায় সৌরভ গাঙ্গুলীর বোর্ড সভাপতি হওয়া। পরের দিন মুম্বাইয়ে বোর্ডের বেসরাকারি সভায় নতুন প্রেসিডেন্ট হবার ব্যাপারেও তিনিই ছিলেন এগিয়ে। সবকিছু ঠিকই ছিলো, কিন্তু হঠাৎ করে চিত্র পাল্টে যায় ব্রিজেশ প্যাটেলকে বোর্ডের বিতর্কিত সাবেক সভাপতি এন শ্রীনিবাসন সমর্থন জানালে।

ঘটনা রাত সাড়ে দশটার, যেখানে সভার মাঝেই হঠাৎ সমর্থন বেড়ে যায় ব্রিজেশ প্যাটেলের। মুহুর্তের মধ্যেই প্রিন্স অব ক্যালকাটার বোর্ড সভাপতি হবার সম্ভাবনা একদম হাওয়ায় মিলিয়ে যায়।

আগের দিনের সভাশেষে নির্ধারণ করা হয় সৌরভকে সভাপতি করে বিজেপি’র সভাপতি অমিত শাহ’র ছেলে জয় শাহ হবেন সচিব, আর ব্রিজেশকে নিয়ে তেমন কোন আলোচনাই হয়নি। এমনকি তাকে সর্বোচ্চ ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে দেখা যাবে কিনা তা নিয়েও ছিলো যথেষ্ঠ সন্দেহ।

এমন সমীকরণ মুহুর্তেই মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখাবে সৌরভকে তা ভাবতে পারননি তিনি নিজেও। ঘন্টা খানেকের মধ্যেই খবর ছড়ায় সৌরভ না ব্রিজেশ প্যাটেল হচ্ছেন বোর্ডের নতুন সভাপতি। কিন্তু খেলোউয়াড়ি জীবনের মত রোমাঞ্চ যেনো এখানেও পিছু ছাড়ছিলো না প্রিন্স অব ক্যালকাটার।

সভা যখন প্রায় শেষের দিকে তখন আবারো নতুন মোড় পায় বোর্ড সভাপতি নির্বাচনের নাটক। এবার সরাসরি ভারতীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আর বিজেপির সভাপতি অমিত শাহর ফোনে পাল্টে যায় সভার চিত্র। ব্রিজেশের সাথে সৌরভের অভিজ্ঞতার তুলনা আনা হলে এবার বোর্ডের অধীনে থাকা ৩০টি সংস্থার কর্তাব্যক্তিরা আপত্তি তোলেন। মুহুর্তেই শ্রীনি সমর্থিত ব্রিজেশের কোর্ট থেকে বল চলে যায় সৌরভের কোর্টে।

শেষ পর্যন্ত সৌরভের প্রত্যাবর্তনে বিসিসিআইয়ের সচিব হিসেবে থাকছেন অমিত শাহ পুত্র জয় শাহ। আর ব্রিজেশ হচ্ছেন আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের নতুন চেয়ারম্যান।

সেই সাথে সৌরভের উত্থানে ক্রিকেট এসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের শীর্ষে বসতে পারেন, তারই দাদা স্নেহাশিষ গাঙ্গুলী
অথবা প্রয়াত জগমোহন ডালমিয়া পুত্র অভিষেক ডালমিয়ার যে কেউ।