কাশ্মীরকে স্বাধীন করতে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি ইমরানের (ভিডিও)

Posted by

সোমবার যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে বসেছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কাশ্মীর প্রসঙ্গ উঠে আসে সেখানে। এরপর কিছুক্ষণ পরই পাকিস্তানে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বিষয় কাশ্মীরের স্বাধীনতা। যাতে আরও একবার ভারতকে কার্যত যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। তাও পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি। ইমরান বলেন, ‘যদি কাশ্মীর দ্বন্দ্ব যুদ্ধের দিকে যায়, তাহলে মনে রাখতে হবে দুই দেশের কাছেই পরমাণু অস্ত্র আছে। আর পরমাণু যুদ্ধে কেউ জয়ী হয় না।’

কাশ্মীর স্বাধীন না হওয়া পর্যন্ত এই বিষয়ে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে জানিয়ে ইমরান খান বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত কাশ্মীর স্বাধীন না হবে, প্রতিটি ফোরামে আমি এই বিষয়ে সর্বোচ্চ আওয়াজ তুলব। নিজেকে ‘কাশ্মীরি দূত’ বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কাশ্মীর স্বাধীন না হওয়া পর্যন্ত আমার চেষ্টা চলবে। কাশ্মীরি জনগণকেও আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, কাশ্মীর ইস্যুটি নিয়ে আমি সারা বিশ্বে কাজ করব।

সাতটি দেশের জোট জি-৭ সম্মেলনে যোগ দিতে আপাতত ফ্রান্সে রয়েছে মোদি ও ট্রাম্প। সম্মেলনে ফাঁকে সেখানেই আলোচনা হয় তাদের। আর সেখানেই পাকিস্তানকে আরও খানিকটা কোনঠাসা করেছেন মোদি বলে দাবি করছে ভারতীয় মিডিয়া। তাদের দাবি ডোনাল্ড ট্রাম্প এদিন মোদির মুখোমুখি বসে বলেন, ‘কাল আমাদের মধ্যে কাশ্মীর নিয়ে কথা হয়েছে। মোদি জানিয়েছেন যে পরিস্থিতি একেবারে নিয়ন্ত্রণে আছে। আমার বিশ্বাস ভারত-পাকিস্তান ভালো কিছু করবে।

ভারতীয় গণমাধ্যম আরও জানায়, এসময় ট্রাম্পের ঠিক পাশে বসে ভারতের অবস্থানটা আরও একবার বুঝিয়ে দেন নরেন্দ্র মোদি। কার্যত কাশ্মীর সমস্যাকে দ্বিপাক্ষিক ইস্যু বলে উল্লেখ করে তিনি ট্রাম্পের হস্তক্ষেপের সব সম্ভাবনাই উড়িয়ে দেন। বলেন, ‘পাকিস্তানের সঙ্গে অনেক ধরনের দ্বিপাক্ষিক ইস্যু আছে। কোনোটাতেই আমরা তৃতীয় কোনও দেশকে বরদাস্ত করব না। আমরা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান খুঁজে বের করব।’ সূত্র : কলকাতা 24×7।

বিডি-প্রতিদিন