মা-বোন-খালার সামনেই স্বামী রবিন ছুরি মারে টুম্পাকে

Posted by

ব্যাংকের স্থায়ী চাকরিটা হলেই মায়ের দুঃখ ঘোচাবেন। হাল ধরবেন পুরো পরিবারের। এমন স্বপ্নই ছিল টুম্পার। যা শেষ হয়ে গেছে মাদকাসক্ত স্বামীর নির্মমতায়। মা- বোন ও খালার সামনেই ঘাতক রবিন ছুরি মারে টুম্পাকে। শোকে বিহ্বল পরিবারের একটাই দাবি ঘাতক রবিনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির। এ ঘটনায় ভাটারা থানায় মামলা করেছে টুম্পার পরিবার।

গগনবিদারী এই আর্তনাদ সদ্য সন্তান হারানো এক মায়ের। যে দু’চোখে মেয়েকে নিয়ে সুখী জীবনের স্বপ্ন দেখতেন জায়েদা বেগম, সেখানে আজ সবকিছু হারানোর বেদনা।

সন্তানহারা মায়ের একটাই আকুতি ঘাতকের সর্বোচ্চ সাজা।

টুম্পার মা বলেন, ওই ঘাতকের হাতে আমার মেয়ে নির্মমভাবে হত্যার শিকার হবে তা বুঝতে পারিনি। আমি ওই ঘাতকের বিচার চাই।

চারবোনের মধ্যে সবার বড় টুম্পা আগলে রেখেছিলেন ছোট তিন বোনকে। প্রিয়জনকে হারিয়ে শোকে বাকরুদ্ধ তারা। আর যেন কাউকে এমন নৃশংসভাবে পৃথিবী ছাড়তে না হয়, সেটাই চান তারা।

এদিকে শনিবার (৩০ নভেম্বর) ভোরে টুম্পার স্বামী রবিনের বিরুদ্ধে রাজধানীর ভাটারা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন তার মা।

আসামি রবিনকে গ্রেফতার করতে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।