এবার বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে নিরবের মালয়েশিয়ান সিনেমা

Posted by

buy antabuse tablets পাঁচ বছর নিষিদ্ধ থাকার পর চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়ায় মুক্তি পেয়েছিল ‘বাংলাশিয়া ২.০’ চলচ্চিত্রটি। এটি চিত্রনায়ক নিরব হোসাইন অভিনীত প্রথম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র।

প্রথমদিন ১১১টি প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি পেলেও মালয়েশিয়ান দর্শকদের চাহিদা কারণে পরদিন তা বাড়িয়ে ১১৬ হলে মুক্তি দেওয়া হয়। মুক্তির পর থেকেই দারুণ সাড়া ফেলে ছবিটি। মালয়েশিয়ার বক্স অফিসে ঝড় উঠে। প্রশংসিত হয় ছবিটির গল্প ও শিল্পীদের অভিনয়।

সেই সাফল্যের ধারাবাহিকতা নিয়ে এবার বাংলাদেশে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘বাংলাশিয়া ২.০’। তাই এর আগে চলচ্চিত্রটি মালে, চায়না, তামিল, থাই, ইংরেজি ভাষায় ডাবিং করা হলেও এবার বাংলা ভাষায় ডাবিং করা হচ্ছে।

নায়ক নিরব জানান, এরইমধ্যে ছবিটি তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে মুক্তির জন্য ছাড়পত্র পেয়েছে। ডাবিং শেষে এটি খুব দ্রুতই সেন্সরে জমা পড়ছে। সেন্সরের অনুমোদন আসলেই ছবিটি সারাদেশে মুক্তি দেয়া হবে।

নিরব বলেন, ‘ছবিটি মুক্তি দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। আমি খুবই আনন্দিত এই ছবিটি আমার দেশের দর্শকের জন্য প্রেক্ষাগৃহে নিয়ে আসার সুযোগ পেয়ে। চিত্রনির্মাতা অনন্য মামুনের প্রযোজনা সংস্থা অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে ছবিটি বাংলাদেশে প্রদর্শিত হবে। আশা করছি খুব ভালো অভিজ্ঞতা অপেক্ষা করছে আমার জন্য।’

‘বাংলাশিয়া ২.০’ ছবিতে নিরবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন সিঙ্গাপুরের অভিনেত্রী আতিকা সোহাইমি। এটি পরিচালনা করেছেন মালয়েশিয়ার নির্মাতা নেময়ুই। তিনি এর আগে পাঁচটি সিনেমা পরিচালনা করেছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালে মালয়েশিয়ান ফিল্ম সেন্সরশিপ বোর্ড ‘বাংলাশিয়া’ সিনেমাটি ব্যান করে দেয়। ছবির ৩১টি দৃশ্য মালয়েশিয়ার সরকারের বিপক্ষে যাওয়ায় সরকার ছবিটির ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। বেশ কিছু কাটছাঁটের পরে ১২ ফেব্রুয়ারি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয় এবং ৯২ মিনিটের এ সিনেমাটির নাম দেয়া হয় ‘বাংলাশিয়া ২.০।’

এ ছবির শুটিং মালয়েশিয়ার পুচং, সেরামবান, কালাং, চায়না টাউন, পোর্টকালংসহ বিভিন্ন জায়গায়। মালয়েশিয়ায় নানা ধরনের অপরাধ এবং প্রবাসীদের সঙ্গে অসদাচরণ নিয়ে ছবিটির গল্প। এখানে নিরবকে দেখানো হয়েছে বাংলাদেশ থেকে ভাগ্যের সন্ধানে মালয়েশিয়া যাওয়া এক যুবকের চরিত্রে। তিনি কখনো বাবুর্চি, কখনো আবার আকাশ ছোঁয়া দালানে চুনকাম করা রাজমিস্ত্রির চরিত্রে হাজির হয়েছেন।

মালয়েশিয়া ছাড়াও সিনেমাটি নিউ ইয়র্ক এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, ওসাকা ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এবং সিঙ্গাপুর ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে দেখানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.