ডুবন্ত ব্রিজে অ্যাম্বুলেন্সকে পথ দেখিয়ে ‘হিরো’ হলো শিশু

Posted by

Discover More Here ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া ১২ বছরের শিশু ভেঙ্কটেশ নদীর ধারে খেলছিল। বন্যায় এই নদীতে থাকা একটি ব্রিজ ডুবে যাওয়ায় যাতায়াতের জন্য চড়ম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছিল। এই পথেই রোগী নিয়ে যাচ্ছিল একটি অ্যাম্বুলেন্স। কিন্তু ডুবে যাওয়া ব্রিজের কাছে এসে সমস্যায় পড়েন চালক। তখন ভেঙ্কটেশের কাছে সহযোগিতা চান তিনি।

বৈরি আবহাওয়া এবং ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও অ্যাম্বুলেন্স চালককে সহযোগিতা করতে রাজী হয় ভেঙ্কটেশ। কোমরসম পানিতে সামনে থেকে পথ দেখিয়ে অ্যাম্বুলেন্সকে নিয়ে যেতে থাকে সে। এসময় সড়কের এই পাশে অনেক মানুষ জমে যায়। একজন এ দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করতে থাকেন।

ভারতের কর্নাটকের রায়চুর জেলার হিরেরায়ানাকুমপি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

অনেকিই এসময় ভেঙ্কটেশকে চিৎকার করে উৎসাহ দিতে থাকেন। পানির মধ্যে দৌঁড়াতে থাকা ভেঙ্কটশে দু্ই/একবার হোচটও খায়। অবশেষে অ্যাম্বুলেন্সটিকে নিরাপদে এপারে নিয়ে আসে সে। পরে তাকেও লোকজন হাত ধরে পানি থেকে তুলে আনেন।

পরে জানা যায় অ্যাম্বুলেন্সটিতে ছয়জন অসুস্থ শিশু এবং একজন নারীর ম’রদেহ ছিল। তাদেরকে হাসাপাতালে নেয়া হচ্ছিল।

ভেঙ্কটশের সাহসীকতাপূর্ণ এই কাজের প্রশংসা করছেন অনেকে। ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ভারতের ৭৩ তম স্বাধীনতা দিবসে এই কাজের স্বীকৃতিও দেয়া হয়েছে।

সম্প্রতি ভারি বর্ষণ এবং বন্যায় কর্নাটকের ২২ জেলায় ৬০ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। ঘরবাড়ি ছাড়তে হয়েছে সাত লাখ মানুষকে। এছাড়া বুধবার পর্যন্ত নিখোঁজ হয়েছেন ১৫ জন মানুষ।

এ অবস্থায় রাজ্য সরকার প্রায় এক হাজারের মতো পুনর্বাসন কেন্দ্র স্থাপন করেছে। নিহতের পরিবারকে পাঁচ লাখ রুপি করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী বিএন ইয়েদুরাপ্পা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.