গুগলে কোটি টাকার চাকরি পেলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী

Posted by

organize http://yeahshetriedthat.com/82608-lady-era-tablet-price-in-pakistan.html সাফল্যের মুকুটে যুক্ত হলো আরও একটি নাম। তিনি চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়কে (চবি) নিয়ে গেলেন এক নতুন উচ্চতায়। এক নতুন মাত্রায়। আরও একবার বিশ্বমঞ্চে তুলে ধরলেন লাল সবুজের পতাকা।

cheap viagra online structure চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করে সদ্য গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করতে যাচ্ছেন সুমিত সাহা। বিশ্বের বৃহত্তম সার্চ ইঞ্জিন গুগলে প্রায় কোটি টাকা বেতনে চাকরির অফার পেয়েছেন তিনি। সুমিত সাহাই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র ছাত্র হিসেবে গুগলে চান্স পেয়েছেন।

http://kpwtechnology.com/87911-robaxin-uk.html deduce সুমিত সাহা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১০-১১ সেশনের ছাত্র ছিলেন। তার এমন সাফল্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা গর্ববোধ করছেন। তার জন্য রইলো শুভকামনা।

http://yildirimhalil.com/36139-himcolin-price.html ড্রাইভারের কাছ থেকে টাকা ধার করে পথশিশুকে দিলেন জাহ্নবী!

http://mohegan.cl/flayeer3/ বিনোদন ডেস্ক : ড্রাইভারের কাছ থেকে টাকা ধার করে পথশিশুকে দিয়ে ভক্তদের প্রশংসা কুড়ালেন শ্রীদেবীকন্যা জাহ্নবী কাপুর। গত মঙ্গলবার ছিল কিংবদন্তি বলিউড অভিনেত্রী শ্রীদেবীর ৫৬তম জন্মবার্ষিকী। নিত্যদিনের মতো সেদিনও জিমে গিয়েছিলেন জাহ্নবী। যথারীতি ক্যামেরার ক্লিক পড়েছে তার ওপর। এ সময় এক পথশিশু তাকে অনুসরণ করে।

antabusefrom mexico অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, জাহ্নবী তার গাড়ির কাছে যাচ্ছিলেন। এমন সময় ওই পথশিশু জাহ্নবীকে অনুরোধ করে, যেন তার কাছ থেকে ম্যাগাজিন কেনেন অথবা কিছু অর্থ সহায়তা করেন। এরপর গাড়িতে ঢোকেন জাহ্নবী। নিজের পার্স ঘেঁটে টাকাকড়ি কিছু না পেয়ে ড্রাইভারের কাছ থেকে ধার নেন। তারপর শিশুটিকে অর্থ দেন। হাত নাড়িয়ে হাসিমুখে বিদায়ও জানান।

ভিডিওটি দেখে জাহ্নবীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ এক ভক্তের প্রতিক্রিয়া, “এটা শ্রীদেবীজির শিক্ষার প্রতিফলন। তার মানবিক হৃদয় ছিল, সেটা কেউ এড়িয়ে যেতে পারবে না। স্বর্গ থেকে গর্ববোধ করছেন শ্রী।” আরেক ভক্ত লিখেছেন, “যত ক্ষুদ্রই হোক, মহানুভবতা কখনো বিফলে যায় না। এটিই শ্রীদেবী তার সন্তানদের শিখিয়েছেন।” আরেকজন লিখেন, “এখন আপনার বয়স কম, আশা করি ভবিষ্যতে আপনি সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য কিছু করবেন।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.